Create an Account

Shopping cart

Close

Subtotal: ৳ 18.00

View cartCheckout

কোলেস্টেরল একটি চর্বি জাতীয় উপাদান। রক্তে বাজে কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে গেলে রক্তনালিতে ব্লক হয়। এতে উচ্চ রক্তচাপ, হার্ট অ্যাটাক, স্ট্রোক হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে।

রক্তে বাজে কোলেস্টেরল বাড়ার প্রবণতা কাদের বেশি, এ বিষয়ে এনটিভির নিয়মিত আয়োজন স্বাস্থ্য প্রতিদিন অনুষ্ঠানের ৩৪২৭তম পর্বে কথা বলেছেন ডা. মো. তৌফিকুর রহমান। বর্তমানে তিনি কর্নেল মালেক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে কার্ডিওলজি বিভাগে বিভাগীয় প্রধান হিসেবে কর্মরত।

প্রশ্ন :  কোলেস্টেরল বাড়ার ক্ষেত্রে ঝুঁকিপূর্ণ কারা ?

উত্তর : যাদের পারিবারিক ইতিহাস রয়েছে, যাদের পরিবারে কোলেস্টেরল হওয়ার ঝুঁকি বেশি রয়েছে, তাদের এই সমস্যা হওয়ার ঝুঁকি বেশি। আরেকটি বিষয় রয়েছে। অনেকের দেখবেন, চোখের কোণায় সাদা সাদা দেখা যায়। তাদের ক্ষেত্রে দেখতে হবে কোলেস্টেরল বেশি রয়েছে কি না। আবার যাদের ডায়াবেটিস রয়েছে, তাদের কিন্তু শরীরে ট্রাইগ্লিসারাইড বেশি হচ্ছে।

এই প্রসঙ্গে একটু বলে রাখি, রক্তে কোলেস্টেরল হলো চার ধরনের। একটি হলো টোটাল কোলেস্টেরল, আরেকটিকে হলো, – লো ডেনসিটি লাইপোপ্রোটিন বা এলডিএল (একে খারাপ কোলেস্টেরল বলা হয়), আরেকটি হলো, হাইডেনসিটি লাইপোপ্রোটিন বা এইচডিএল (একে ভালো কোলেস্টেরল বলা হয়)। চার নম্বর হলো, ট্রাইগ্লিসারাইড। এখন এই চারটি কোলেস্টেরলের মধ্যে তিনটি ক্ষতিকর। আরেকটি ভালো।

এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি খারাপ হলো এলডিএল। এর যদি মাত্রা বেশি থাকে, তাহলে চর পড়া বা ব্লক হওয়ার প্রবণতা বাড়ে।

এই এইচডিএল কী করে? রক্ত পরিষ্কার করে। এইচডিএল রক্ত থেকে বাজে কোলেস্টেরলটা শোষণ করে নিয়ে যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to Top